Categories
রাজ্য

ইতিহাসের আজবতম আত্মহত্যার গল্প

একবার রোনাল্ড ওবোস নামের এক ব্যক্তি তার জীবন শেষ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। তাই তিনি যে বিল্ডিংয়ে বাস করেন, তার সর্বোচ্চ তোলা থেকে ঝাঁপিয়ে পড়ে আত্মহত্যা সহজতম উপায়টি বেছে নিয়েছিলেন। তিনি এটি করেছিলেন। তার আগে রোনাল্ড তার পরিবারের উদ্দেশ্যে একটি চিঠি লিখেছেন যে তিনি আরও ভাল জীবনযাপন করার সমস্ত আশা হারিয়ে ফেলেছেন।

তবে ১৯৯৪ সালের ২৩ শে মার্চ তার মৃত্যু পরবর্তী পোস্টমর্টেম রিপোর্টে মাথায় গুলিবিদ্ধ হওয়াকে তার মৃত্যুর কারণ উল্লেখ করা হয়েছিল। তদন্ত শুরু করার পরে দেখা যায় যে বুলেটটিই রোনাল্ডের মৃত্যুর কারণ হয়েছিল।

যে বিল্ডিংয়ের ৯ তলার ফ্ল্যাটে তিনি বাস করছিলেন, সেই একই বিল্ডিংয়ে একটি বৃদ্ধ দম্পতি দীর্ঘকাল ধরে বাস করছিলেন। প্রতিবেশীরা জানিয়েছিলেন, এই দম্পতি সব সময় লড়াই করত এবং আশ্চর্যের বিষয় হল যখন একই সময়ে রোনাল্ড তার ছাদ থেকে লাফ দিয়েছিলেন, বন্দুকধারী বৃদ্ধ তার স্ত্রীকে হত্যার হুমকি দিচ্ছিলেন। চরম আগ্রাসনে স্বামী তার স্ত্রীকে গুলি করেছিলেন কিন্তু গুলিটি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে রোনাল্ডকে আঘাত করেছিল। রোনাল্ড সেই মুহূর্তেই ঝাঁপ দিয়েছিলেন।

(এখনও কিন্তু গল্পে টুইস্টটি রয়ে গেছে) যখন মামলাটি আদালতে তোলা হয়, তখন বৃদ্ধ লোকটি জোর দিয়েছিলেন যে তারা সর্বদা লড়াই করেন ঠিকই, তিনি তার স্ত্রীকে হুমকিও দিয়েছিলেন কিন্তু তবে বন্দুকটি সর্বদা গুলিশূন্য রাখা হয়। আরও তদন্তের পরে, একটি আশ্চর্যজনক বিষয় দেখা যায় যে বৃদ্ধ দম্পতির কোনও আত্মীয় তাদের ছেলেকে বুড়ো লোকটির বন্দুকটিতে গুলি লোড করতে দেখেন। কারণটি ছিল যে তাদের পুত্র তার মায়ের কাছে টাকা চেয়েছিল, কিন্তু মা তা দিতে প্রত্যাখ্যান করেছিলেন, তাই ছেলেটি তার বৃদ্ধ বাবা-মাকে মেরে ফেলার পরিকল্পনা করেছিল।

সে খুব ভাল করেই জানত যে তারা সর্বদা লড়াই চালাত এবং পরের বার যখন তার বাবা একটি লোড করা পিস্তল থেকে গুলি করবে তখন এটি তার মায়ের মৃত্যুর কারণ হবে। আর তার বাবা জেলখানায় বন্দী হবে। তবে বুলেটটি সেই বৃদ্ধা মহিলার বদলে রোনাল্ডকে আঘাত করে। সুতরাং একটি হত্যা মামলার অপরাধী এখন তাদের ছেলে। (অদ্ভুত !! এবার সম্পূর্ণ গল্পের দিকে একবার নজর দিন)

এই সমস্ত গল্পের মধ্যে অদ্ভুত বিষয়টি হ’ল রোনাল্ড-ই আসলে বৃদ্ধা দম্পতির পুত্র। সে তার বাবা-মা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য একটি গুলি তার বাবার বন্দুকের মধ্যে ফেলে। কিন্তু খারাপ আর্থিক পরিস্থিতির কারণে এবং বাবা মা টাকা দেবেন না বলে তিনি সেই চাপ নিতে না পেরে, তিনি নিজেকে শেষ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। ছাদ থেকে লাফানোর সময় একই গুলি যা রোনাল্ড বাবার বন্দুকে ভরেছিলেন, তাঁর মাথায় আঘাত করে। সুতরাং এই পদ্ধতিতে, রোনাল্ড-ই হত্যাকারী এবং নিজেই নিজের শিকার …! সংগৃহীত।