Categories
শিলিগুড়ি

মানুষ রূপী অমানুষের নৃশংসতায় উদ্বিগ্ন প্রকৃতিপ্রেমিরা

ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল এই ছবিটি। ডাক্তার যখন হাতিটির পোস্টমর্টেম করেন তখন জানা যায়, পনেরো বছরের হাতিটি ছয়মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিল।

দেশের সবচেয়ে শিক্ষিত রাজ্য কেরালার সাইলেন্ট ভ্যালি ন্যাশানাল পার্ক থেকে হাতিটি খাদ্যের সন্ধানে এসেছিল কাছাকাছি একটি গ্রামে। এই অভুক্ত অন্তঃসত্ত্বা হাতিটিকে আনারস খেতে দেয় কতিপয় মানুষ। কিন্তু এর পেছনের অভিসন্ধি জানা ছিল না হাতিটির,স্বাভাবিক ভাবেই অভুক্ত হাতিটি অনারস খায়, খাবার পরেই পেটের মধ্যে শুরু হয় আওয়াজ। কারন ওই আনারসের মধ্যে বাজি ভরে সেটাই খেতে দেওয়া হয়েছিল হাতিটিকে।

পেটের মধ্যেই ফাটতে শুরু করে বাজি,অসহ্য জ্বালায় ও কষ্টে হাতিটি মাঝনদীতে ঠান্ডা জলের মধ্যে মুখ ডুবিয়ে স্থির দাঁড়িয়ে ছিল জ্বালা উপশমের জন্য।কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত জ্বলন্ত বাজি পেটের ভেতর গিয়েও স্বমহিমায় ফাটতে থাকে,নৃশংস নরপিশাচদের অভিসন্ধির কাছে হেরে যায় জীবনী শক্তি। একমুখ রক্ত নিয়ে সে জলে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে ধীরে ধীরে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে।এ দৃশ্য সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন নেটিজেনরা। উদ্বেগ বাড়ছে পরিবেশ প্রেমিদের মধ্যে।