Categories
উত্তরবঙ্গ শিলিগুড়ি

লকডাউনে লাগাতার লড়াইয়ে রঞ্জন

শহর শিলিগুড়ির জনপ্রিয় ও বিতর্কিত নেতা রঞ্জন শীল শর্মা। গত তিন দফায় কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত ৩৬ ও ৩৭ নম্বর ওয়ার্ড থেকে,শেষ দফায় ছিলেন ৩৭ নম্বর ওয়ার্ডের দায়িত্বে। তিন বারই জিতেছেন বিপুল ব্যবধানে। বিতর্ক কিন্তু কখনই তাঁর পিছু ছাড়েনি। তবে এসবের ঊর্ধে মানুষ রঞ্জনের জনপ্রিয়তা সর্বজনবিদিত। মানুষ কিন্তু ওনাকে ভোট দিয়েছেন দু’হাত ভরে, ভালোবেসে। কান পাতলে শোনা যায় উনি নাকি গরিবের মসীহা। এলাকায় কারও মেয়ের বিয়ে বা অর্থের অভাবে পড়াশোনা আটকে গেছে, চিকিৎসা হচ্ছে না, পাশে দাঁড়ান রঞ্জন।এমনকি শিলিগুড়ি শহরে বয়স্কদের নিয়ে বনভোজন ও পুজো পরিক্রমার যে ট্রেন্ড শুরু হয়েছে তাও প্রথম চালু করেন রঞ্জনই।

আর বর্তমানে করোনা আতঙ্কে মানুষের সুরক্ষার স্বার্থে লকডাউন যখন একমাত্র পথ, তখন সেই লকডাউনেই বহু মানুষ রুজিরুটিহীন। কর্মহীন বহু মানুষের এই দুর্দশার কথা শুনে এবারও এগিয়ে এসেছেন তিনি।গত ৬৩ দিন ধরে লাগাতার অসহায় মানুষদের সেবায় দিনরাত কাজ করে চলেছেন।কখনও পৌঁছে দিচ্ছেন খাদ্যসামগ্রী, আবার কখনও ভ্রাম্যমান শিবির করে বিতরণ করছেন রান্না করা খাবার। ৩৬ বা ৩৭ কিংবা ডাক আসলে ছুটে যাচ্ছেন অন্য এলাকাতেও। আবার মানুষের স্বাস্থ্যের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে ওয়ার্ডে নিয়মিত সানিটাইজেশন করাচ্ছেন। এভাবেই মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন বিতর্কিত কিন্তু ভালোবাসার নেতা রঞ্জন শীলশর্মা।

  • ●বছরের বাকি সময় গুলোতে না হয় চলবে রাজনৈতিক বিতর্ক বা চুলচেরা বিশ্লেষণ।এই দুর্যোগে যারা মানুষের স্বার্থে কাজ করে যাচ্ছেন তাদের কুর্নিশ। আগামী দিন আমাদের কলমে তুলে ধরব অন্য কোনো এক যোদ্ধাকে।পর্ব ১